News

বিজয় দিবসে আইআইইউসি’র আলোচনায় ভিসি প্রফেসর গোলাম মহিউদ্দিন

আমাদের বিজয়ের পঞ্চাশ বছরেও দেশে সাম্য প্রতিষ্ঠা হয়নি, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মেহনতি মানুষের ভাগ্য বদলায়নি

আমাদের বিজয়ের পঞ্চাশ বছরেও দেশে সাম্য প্রতিষ্ঠা হয়নি, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মেহনতি মানুষের ভাগ্য বদলায়নি

আমাদের বিজয়ের পঞ্চাশ বছরেও দেশে সাম্য প্রতিষ্ঠা হয়নি, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী মেহনতি মানুষের ভাগ্য বদলায়নি

 

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি)’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে.এম. গোলাম মহিউদ্দিন বলেছেন, বিজয়ের পঞ্চাশ বছরেও সাম্য প্রতিষ্ঠা হয়নি। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী অগণিত মেহনতি মানুষের ভাগ্য বদলায়নি। তাদের উন্নতি না হলে দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি আসবে না। তবে পঞ্চাশ বছরে আমাদের অর্জন অনেক। দারিদ্র্যের হার আশি-নব্বই শতাংশ থেকে একুশ শতাংশে চলে এসেছে, বীর সেনাবাহিনী বাংলাদেশের দারুণ ব্রান্ডিং করেছে, রপ্তানীতে ব্যাপক অগ্রগতি, বিদেশের শ্রম বাজারে এমন কি আমাদের শিক্ষিত-উচ্চ শিক্ষিত জনশক্তির ব্যাপক চাহিদা সৃষ্টি হওয়া এবং সর্বশেষ পদ্মা সেতু নির্মাণ এসব আমাদের অনেক বড় অর্জন। জাতি হিসাবে বিশ্বে আমরা একটা স্থান করে নিয়েছি, সমৃদ্ধির নানা সূচকে আমরা অনেক এগিয়ে আছি।

১৬ ডিসেম্বর বুধবার সকালে আইআইইউসি আয়োজিত বিজয় দিবসের এক ভার্চুয়াল আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর কে.এম গোলাম মহিউদ্দিন এ কথা বলেন। আইআইইউসি’র প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, আইআইইউসি’র ট্রেজারার প্রফেসর ড. আবদুল হামিদ চৌধুরী। অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, আইকিউএসি’র ডিরেক্টর প্রফেসর ড. মোঃ দেলাওয়ার হোসেন এবং শরীয়াহ অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. শাকের আলম শওক। স্বাগতঃ বক্তব্য রাখেন আইআইইউসি’র রেজিস্ট্রার কর্নেল মোহাম্মদ কাসেম পিএসসি (অবঃ)। অনুষ্ঠানে আবৃত্তি পরিবেশন করেন আইআইইউসি’র সহকারী পরিচালক, জনসংযোগ দেশবরেণ্য আবৃত্তি শিল্পী মোসতাক খন্দকার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্টুডেন্ট এ্যাফেয়ার্স ডিভিশনের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ ও অতিরিক্ত পরিচালক কবি, গীতিকার ও বাচিক শিল্পী চৌধুরী গোলাম মাওলা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে.এম গোলাম মহিউদ্দিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর সাহসী রাজনৈতিক দূরদর্শীতা জাতিকে বিজয়ের স্বাদ এনে দিয়েছিল। তিনি বঙ্গবন্ধুকে স্বাধীনতার স্থপতি উল্লেখ করে তার এবং অগণিত মুক্তিযোদ্ধার প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, মানবিক মর্যাদা আজ চরম কদর্য রূপ নিয়েছে। একজন সামান্য ওসি থানায় বসে সেনাবাহিনীর একজন মেজর হত্যার পরিকল্পনা ও কার্যকর করেছে। এটা একটা দেশে মানবিক মর্যাদাহীনতার ভয়াবহ দৃষ্টান্ত। তিনি বলেন, অসমতা অসাম্য অর্থনৈতিক উন্নতিকে ব্যাহত করছে। শিক্ষা ক্ষেত্রেও সমতা আনতে পারিনি। নিজেদের মধ্যে সত্যিকারের দেশপ্রেম গড়ে তুলতে পারলে আমরা অনেক খারাপ কিছু থেকে মুক্তি পাবো বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে আইআইইউসি’র প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদী বলেন, বঙ্গবন্ধুর নামেই জাতি ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল এবং যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। একটি রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের পরও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান বিভেদের রাজনীতি করেন নি। তিনি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চেয়েছিলেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতা রক্ষা অনেক কঠিন কাজ। সঠিক নেতৃত্ব ও দেশপ্রেমের মাধ্যমে যদি দেশগঠন করা যায় তাহলে স্বাধীনতা ও বিজয়ের সুফল নিশ্চিত হবে।

সভা শেষে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্মরণে দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন শরীয়াহ অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. শাকের আলম শওক।

Recent News