Seminar Regarding National Budget 2013-2014

আইআইইউসি’র  সেমিনারে প্রো ভিসি ড. আবু বকর রফীক

কালো টাকা সাদা নয় বরং কালো টাকার উৎস বন্ধ করতে হবে

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি) এর প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. আবু বকর রফীক বলেছেন, কালো টাকা সাদা নয় বরং কালো টাকার উৎস বন্ধ করতে হবে। কোন টাকা অন্যায়ভাবে অর্জিত হোক এটা কারো কাম্য নয়। তবে কারো সৎ উপার্র্জিত অর্থ প্রক্রিয়াগত ত্র“টির কারণে যদি কালো টাকা হিসেবে অভিহিত হয়, তা প্রয়োজনীয় আয়কর প্রদানের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতির সাথে সম্পৃক্ত করার প্রভিশন রাখা যায় বলে অভিমত দেন।

গতকাল রবিবার আইআইইউসি’র ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ আয়োজিত ‘ন্যাশনাল বাজেট অব বাংলাদেশ ২০১৩-১৪ ঃ এ ক্রিটিক্যাল রিভিউ” শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ অভিমত ব্যক্ত করেন। ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. ফরিদ আহমেদ সোবাহানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম মোল্লা। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর ড. আবুল কালাম আযাদ, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-২ এর কমিশনার অপূর্ব কান্তি দাস। সেমিনারে মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যপক আবদুল্লাহিল মামুন ও সহকারী অধ্যাপক নেজামুল হক। সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফিমেল ক্যাম্পাসের ইন-চার্জ ও ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রধান ড. আবদুল হামিদ চৌধুরী, স্টুডেন্ট এ্যাফেয়ার্স ডিভিশনের পরিচালক আ.জ.ম. ওবায়েদুল্লাহ ও ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ জাহিদুর রহমান। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ হাফিজ উল্লাহ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. আবু বকর রফীক বলেন, শিক্ষা খাতে বাজেটের বরাদ্দ বাড়াতে হবে, যাতে সৎ ও যোগ্য নাগরিক বের হতে পারেন, যারা আগামী দিনের সৎ নেতৃত্ব দিতে পারেন। তিনি আরো বলেন, উন্নয়ন খাতেও বাজেটের বরাদ্দ বেশী হওয়া উচিত। এতে যেমন কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে, তেমনি বাড়বে প্রবৃদ্ধি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইআইইউসি’র একাডেমিক এডভাইজার প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম মোল্লা বাজেটের উপর ঢালাওভাবে সমালোচনা না করে গঠনমূলক আলোচনার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, বাজেটের ব্যাপারে রাজনৈতিক বক্তব্য বাজেট পর্যালোচনার সঠিক তথ্য প্রদান করে না।

প্রধান আলোচকদের মধ্যে প্রফেসর ড. আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাজেটের আয়ের বড় উৎস যদি কর থেকে অর্জিত হয় এটা একটা দেশের জন্য ইতিবাচক, কারণ এ আয়টা অর্থনীতির জন্য একটা ভারসাম্য আয়।

আলোচকের বক্তব্যে চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-২ এর কমিশনার অপুর্ব কান্তি দাস বলেন, বাজেট সরকারের একটি   নিয়মতান্তিক কাজের অংশ। তবে এটাকে বাস্তবায়নের জন্য দেশের সকল করযোগ্য ব্যক্তিকে নিজস্ব উৎসাহে কর প্রদানে সচেতন হতে হবে। কর প্রদানে ব্যক্তি সচেতন হলে সরকারেরও বাজেট বাস্তবায়নে জবাবদিহিতা যেমন বেড়ে যায় তেমনি সহজ হয়। বাজেট বাস্তবায়ন সরকারের জন্য চ্যালেঞ্জ হওয়ায় এ ব্যাপারে সকলের এগিয়ে আসার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে গুরুত্বপুর্ণ অবদান রাখতে পারে।  প্রেস বিজ্ঞপ্তি

(মোসতাক খন্দকার)
জনসংযোগ কর্মকর্তা
আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম