আইআইইউসি’র আলোচনায় ভিসি প্রফেসর কে. এম গোলাম মহিউদ্দিন

স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধুর নির্মম হত্যাকান্ডে জাতি হিসাবে আমরা সারা বিশ্বের কাছে খাটো হয়েছি

স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধুর নির্মম হত্যাকান্ডে জাতি  হিসাবে আমরা সারা বিশ্বের কাছে খাটো হয়েছি

আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি)’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে. এম. গোলাম মহিউদ্দিন বলেছেন, স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধুর নির্মম হত্যাকান্ডে জাতি হিসাবে আমরা সারা বিশ্বের কাছে খাটো হয়েছি। আন্তর্জাতিক চক্রান্তের মাধ্যমে এই দেশ ও জাতিকে সর্বদা নেতৃত্ব-শূন্য করার ষড়যন্ত্র হয়েছে। বঙ্গবন্ধুও সেই ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু সাহসী ব্যক্তিত্ব ছিলেন। দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠনে উনার ভূমিকা ছিল। তিনি অংশীদারীত্বের গণতন্ত্রে বিশ্বাসী ছিলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার সকালে আইআইইউসি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর কে.এম গোলাম মহিউদ্দিন এ কথা বলেন। আইআইইউসি’র প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আইআইইউসি’র ট্রেজারার প্রফেসর ড. আবদুল হামিদ চৌধুরী, আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ দেলাওয়ার হোসেন, শরী’য়াহ অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. নাজমুল হক নাদভী, ব্যবসায শিক্ষা অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, রেজিস্ট্রার কর্নেল মোহাম্মদ কাসেম পিএসসি (অবঃ) এবং প্রক্টর ড. মোহাম্মদ কাওসার আহমেদ। স্বাগতঃ বক্তব্য রাখেন আবাসিক হলের প্রভোস্ট মোঃ সিরাজুল ইসলাম এবং ছাত্রদের পক্ষে আসিফ ইকবাল সৌরভ ও আ ক ম বদরুজ্জামান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবদুল্লাহ মোঃ আহসানুল মামুন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর কে.এম গোলাম মহিউদ্দিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর যাদুময় নেতৃত্ব জাতিকে স্বাধীনতার স্বাদ এনে দিয়েছিল। এ দেশের স্বাধীনতা অর্জনের জন্য প্রথমেই এবং বারবার যে নামটি উচ্চারিত হবে তা হল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর অতুলনীয় রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ছিল বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আরও বলেন, আইআইইউসি’র সেন্ট্রাল লাইব্রেরীতে একটা মুক্তিযোদ্ধা কর্ণার করা হবে যাতে শিক্ষার্থীরা স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধুসহ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্পর্কে জানতে পারে।।


সভাপতির বক্তব্যে আইআইইউসি’র প্রো ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলী আজাদী বলেন একটি রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের পরও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিভেদের রাজনীতি করেন নি। তিনি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চেয়েছিলেন। তিনি কোন নির্দিষ্ট দলের নেতা নন, তিনি জাতির নেতা। শেখ মুজিবুর রহমান শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল ও ইতবিাচক পরিবর্তন এনেছিলেন। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের প্রতীক ছিলেন তিনি। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাইরের কেউ এই দেশকে রক্তচক্ষু দেখানোর সাহস করতো না বলে প্রফেসর আজাদী উল্লেখ করেন।

আলোচনা সভা শেষে বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফেরাত কামনা করে মুনাজাত করা হয়।

Recent News